চিরায়ত

Items Showing 1 to 24 from 90 books results

প্রলয়-শিখা

কাজী নজরুল ইসলাম
  • ফ্রি বই

কাজী নজরুল ইসলামের প্রায় সব বিখ্যাত ও উল্লেখযোগ্য জনপ্রিয় বইগুলোই শাসক ব্রিটিশরা বাজেয়াপ্ত ও নিষিদ্ধ করে; এর মধ্যে ‘প্রলয়-শিখা’ কাব্যগ্রন্থ অন্যতম। সরকারি রোষের কোপে পড়েছিলো এটি। কবির মনোজগতে তখন তোলপাড় চলছে। প্রাণাধিক প্রিয় পুত্র বুলবুল মারা গেছেন। বিদ্রোহ-বিপ্লবের পুরোধা কবি কেঁদে কেঁদে আকুল। চোখে জল কিন্তু বুকে আগুন। সেই আগুনের ফুলকি ছড়িয়ে পড়লো ‘প্রলয় শিখা’র প্রতিটি শব্দে। বিদ্যুৎ-গতিতে ‘প্রলয় শিখা’ ছুটলো পুরো বাংলায়। এই কাব্যগ্রন্থে বিদ্রোহী কবি সোচ্চার হয়েছেন পরাধীনতা ও শোষণের বিরুদ্ধে। শব্দের তেজস্বী অলংকরণে মানবচেতনায় বোধ জাগিয়ে তোলাই ছিলোই ‘প্রলয়-শিখা’র মূল উদ্দেশ্য।

চোখের বালি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
  • ফ্রি বই

চোখের বালি বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি সামাজিক উপন্যাস। ১৯০১-০২ সালে নবপর্যায় বঙ্গদর্শন পত্রিকায় ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হয়। ১৯০৩ সালে বই আকারে প্রকাশিত হয়। উপন্যাসের বিষয় ‘সমাজ ও যুগযুগান্তরাগত সংস্কারের সঙ্গে ব্যক্তিজীবনের বিরোধ’। উপন্যাসে চরিত্র গুলি হল :মহেন্দ্র, আশা, বিহারী, বিনোদিনী, রাজলক্ষ্মী, অন্নপূর্ণা। মহেন্দ্র তার মা রাজলক্ষ্মীর প্রথম অনুরোধে বিনোদিনীকে বিবাহ করে না। কিন্তু পরে তার কাকীর অনুরোধে আশাকে বিয়ে করে কিন্তু আশাকে বিয়ে করে সে তার মা কাকী ও পুরাতন বন্ধু বিহারীকে ভুলে যায়। কিন্তু শেষে নানা বাধা বিঘ্ন শেষে আবারও ফিরে আসে।

বিষবৃক্ষ

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
  • ফ্রি বই

বিষবৃক্ষ বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত একটি উপন্যাস। এটি বঙ্কিমচন্দ্রের চতুর্থ বাংলা উপন্যাস এবং তাঁর বিষবৃক্ষ-কৃষ্ণকান্তের উইল-রজনী গার্হস্থ্যধর্মী উপন্যাসত্রয়ীর অন্যতম।১২৭৯ বঙ্গাব্দের বৈশাখ সংখ্যা (১৮৭২) থেকে চৈত্র সংখ্যা (১৮৭৩) পর্যন্ত বঙ্গদর্শন পত্রিকায় মোট বারোটি কিস্তিতে বিষবৃক্ষ উপন্যাসটি প্রকাশিত হয়।গ্রন্থাকারে প্রথম প্রকাশিত হয় ১৮৭৩ সালের ১ জুন।এই উপন্যাসটি আধুনিক বাংলা উপন্যাস সাহিত্যের আদিযুগের একখানি উপন্যাস। বিষবৃক্ষ উপন্যাসের বিষয়বস্তু ছিল সমসাময়িক বাঙালি হিন্দু সমাজের দুটি প্রধান সমস্যা - বিধবাবিবাহ ও বহুবিবাহ প্রথা।এই উপন্যাসের পটভূমি বিধবাবিবাহ আইন পাশ হওয়ার সমসাময়িক কাল। এই উপন্যাসের নায়িকা বিধবা কুন্দনন্দিনীর চরিত্রটি বঙ্কিমচন্দ্রের কনিষ্ঠা কন্যার ছায়া অবলম্বনে রচিত হয় বলে জানা যায়।

রাইকমল

তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
  • ফ্রি বই

মহেশ মণ্ডল খুশি হইয়া আর একবার তামাক সাজিয়া খাইয়াছিল, খাওয়াইয়াছিল। এবং এবার সে জিজ্ঞাসা করিয়াছিল, বাবাজীর নাম কি ? বাউলও ওই সুরে সুর মিলাইয়া বলিয়াছিল, কানা ছেলের নাম পদ্মলোচন-রসময় অনেক দূর, পঙ্করসে ডুবে রইলাম, বাপ-মা নাম দিয়েছেন রসিকদাস। ঘর কোথা গো? যাবে কোথা? ঘরের ঠিকানা বাউলের নাই বাবা, পথেই ঘুরছি; যাব ব্রজে তা পথের মাঝে পথ হারিয়েছি। ঠিক এই সময়েই ওই কমলিনীর সঙ্গে দেখা। মহেশ মোড়লের ছেলে রঞ্জনদের সঙ্গে খেলা সারিয়া সে তখন ঘরে ফিরিতেছিল। কচি মুখে রাসকলি ও খাটো চুলে বাঁধা চুড়া কুঁটি দেখিয়া বাউল বলিয়াছিল, এ যে দেখি খাসা বষ্টুমী! কি নাম গো তোমার? কমলিনী বলিয়াছিল, আমি কমল। বাউল বলিয়াছিল, শুধু কমল ন্যাড়া শোনায়, তুমি রাইকমল।

কঙ্কাবতী

ত্রৈলোক্যনাথ মুখোপাধ্যায়
  • ৳১০

‘কঙ্কাবতী’ বাংলা সাহিত্যের একটি রসাত্মক উপন্যাস। লেখক এতে কৌতুক এবং করুণা উদ্রেক করে বিনা আড়ম্বরে আপন কল্পনাশক্তির পরিচয় দিয়েছেন। ভূত-প্রেত ও কাল্পনিক জীব-জন্তু-এর এমন এক জগৎ নির্মাণ করেছেন যার অভিনবত্ব পাঠককে রূপকথার জগতে নিয়ে যাবে। এ জগৎ থেকে ত্রৈলোক্যনাথ মুখোপাধ্যায় আমদানি করেন কঙ্কাবতীকে। উপন্যাসের প্রথম ভাগে বর্ণিত হয়েছে বাস্তব জীবনের কথা। দ্বিতীয় ভাগে লেখক তাঁর লেখা নিয়ে যান রূপকথার কল্পজগতে। এ জগৎ ঘুরে এসে তিনি ফিরে যান বাস্তবলোকে। লেখক ত্রৈলোক্যনাথ মুখোপাধ্যায় তাঁর এ উপন্যাসে বাঙালি সমাজে প্রচলিত ভ্রান্ত বিশ্বাস ও অন্ধ সংস্কারকে আঘাত করেছেন।

হুতোম প্যাঁচার নকশা

কালীপ্রসন্ন সিংহ
  • ৳১০

‘হুতোম প্যাঁচার নকশা’ একটি স্যাটেয়ারধর্মী রচনা। এটি উনিশ শতকের মাঝামাঝি সময়ের কলকাতা ও তার নিকটবর্তী অঞ্চলের ধর্ম-নীতি-সামাজিক উৎসবের একটি নাতীদীর্ঘ বর্ণনা। বইয়ে লেখক নানা ব্যক্তি ও গোষ্ঠীর অসামাজিক আচরণ ও রুচিবৈকল্য নিয়ে ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ করেছেন। কলকাতার কথ্য এবং সাধু ভাষায় লেখা ব্যঙ্গাত্মক এই রচনায় সে সময়ের কিছু মজার মজার অশালীন শব্দও ব্যবহৃত হয়েছে। যা পাঠককে দিবে বাড়তি আনন্দ। রম্য রচনার এই আকাল সময়ে পুরনো এই বইটি রম্যপাঠকের চাহিদা মেটাতে সক্ষম। নতুন পাঠকদের জন্য প্রথম দিকে ভাষার ধরণ বুঝতে একটু কষ্ট হলেও এক-দুইটি পরিচ্ছেদ পড়ার পর পাঠক রচনাশৈলী ধরে ফেলতে পারবেন নিশ্চিত।

Items Showing 1 to 24 from 90 books results

Boighor

Stay Connected