সব সময় ফ্রি

Items Showing 1 to 20 from 20 books results

সর্বহারা মনিরা

জীবনানন্দ দাশ
  • ফ্রি বই

মুরাদের হাত থেকে রক্ষা পেল মনিরা। রক্ষা পেল পুলিশের হাত থেকে। সবচেয়ে বড় শান্তি তার স্বামী বনহুর বেঁচে আছে। যদিও তার স্বামীর মনে মুরাদের কথাগুলো অবিশ্বাসের আগুন ধরিয়ে দিয়েছে তবু এতটুকু দমে যায়নি সে। একদিন না একদিন এ ভুল তার স্বামীর ভেঙে যাবে, ফিরে আসবে... ঐ দিনটির প্রতীক্ষায় অনন্তকাল ধরে প্রতীক্ষা করবে সে। কিন্তু আশ্রয়হীন মনিরা আশ্রয়ের উদ্দেশ্যে ঘটনাকক্রমে বন্দী হয় এক নারী ব্যাবসায়ী হেমাঙ্গীনির অধীনে, হারাতে হলো শিশুপুত্র নূরকে! গহীন বনে কাপালিক সন্ন্যাসীর কোলে বলির জন্য অসহায় নূর। খড়গহস্তে দণ্ডায়মান সন্ন্যাসী। মন্ত্রপাঠরত রক্ত পিপাসু কাপালিক। সামনে জমকালো কালীমূর্তি, লকলকে জিহ্বা প্রসারিত করে দাঁড়িয়ে আছে...

ঘরে বাইরে

জীবনানন্দ দাশ
  • ফ্রি বই

ঘরে বাইরে (১৯১৬) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত একটি উপন্যাস। এটি চলিত ভাষায় লেখা রবীন্দ্রনাথের প্রথম উপন্যাস। উপন্যাসটি ১৯১৫ সালে সবুজপত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। স্বদেশী আন্দোলনের পটভূমিকায় রচিত এই উপন্যাসে একদিকে আছে জাতিপ্রেম ও সংকীর্ণ স্বাদেশিকতার সমালোচনা, অন্যদিকে আছে সমাজ ও প্রথা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত নারী পুরুষের সম্পর্ক; বিশেষত পরস্পরের আকর্ষণ-বিকর্ষণের বিশ্লেষণ। স্বামী নিখিলেশের প্রতি অনুরাগ সত্ত্বেও এই কাহিনীর নায়িকা বিমলা বিপ্লবী সন্দীপের দ্বারা তীব্রভাবে আকর্ষিত। একদিকে বাইরে জাতীয় আন্দোলনের উত্তেজনা অন্যদিকে তিনটি মানুষের জীবনে টানাপোড়ন - রাজনীতি ও ব্যক্তিগত জীবনের দ্বন্দ্ব এই দুই মিলে উপন্যাস।

বিয়ে আধুনিক স্টাইল

জীবনানন্দ দাশ
  • ফ্রি বই

ছুটির দুপুরে ক্লাবের আড্ডা তখন জমজমাট। কেউ বই পড়ছে অলসভাবে, কেউ ফ্রি-হ্যান্ড এক্সারসাইজ, চলছে ব্যায়ামের জন্য আরো যন্ত্রপাতি আনার আলোচনা, সাথে ঠাট্টা-মশকরা আর এক-আধটু বাঁদরামোও। এর মধ্যেই সান্টু গলা নামিয়ে রকিকে বল্লো, ওস্তাদ তোমার সীসপিয়া তুমি যাকে ডাকো লীলা বলে তিনি সব লীলাখেলা শেষ করে পরের বাড়ি চলে যাচ্ছেন। রকির ভাই রসি বলে উঠল, আমার ভাই গত এক বছর থেকে মজনু। লায়লীর কোনও রাইট নেই তাকে ত্যাগ করার বা দাগা দেবার। সেদিকে কান নেই রকির, স্বপ্ন দেখছিল সে- বিয়ের পর চলে যাবে ইটালিতে। পাহাড় আর ঝর্ণার ধারে ছোট্ট এক ভিলায় কফির পেয়ালা মুখোমুখি রেখে লীলা আর সে। সে আর লীলা। সে স্বপ্ন কি ভেঙ্গে যাবে এবার?

পদ্মানদীর মাঝি

জীবনানন্দ দাশ
  • ফ্রি বই

জীবন জীবিকার তাগিদে পদ্মানদীর সাথে নিবিড়ভাবে জড়িত মানুষের কাহিনী এটি। পদ্মার সংগ্রামী জীবনের সাথে জেলেদের যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক, তাতে তাদের আনন্দ নেই, নেই স্বপ্ন, নেই চাওয়া পাওয়া। আছে সীমাহীন বেদনা ভার। প্রাণান্তর পরিশ্রম করেও সেই পরিশ্রমের ফসল তারা ভোগ করতে পারে না। ভোগ করে মহাজন। উপসে তাদের দিন কাটে। জেলেদের জীবন দারিদ্র্যের নির্মম কষাঘাতে জর্জরিত। জেলেপাড়ার ঘরে ঘরে শিশুদের ক্রন্দন কোনো দিন থামে না। গ্রামের ব্রাহ্মণ শ্রেণীর লোকেরা অত্যন্ত ঘৃণাভরে জেলেদের পায়ে ঠেলে। কালবৈশাখীসহ নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ তাদের অস্তিত্ব মুছে ফেলার জন্য বারবার আঘাত হানে।

নৌকাডুবি

জীবনানন্দ দাশ
  • ফ্রি বই

নির্ধারিত দিনে বিয়ে সম্পন্ন হলো। বরযাত্রী নৌকা দিয়ে ফিরছে। এমন সময় হঠাৎ শুরু হলো প্রচণ্ড ঝড়। ঝড়ে ডুবে গেল নৌকা। রমেশ ও তার স্ত্রী সুশীলা ছাড়া কেউ বেঁচে নেই। সময়ের সাথে সাথে রমেশ সুশীলার মধ্যে অনেক অসামঞ্জস্যতা দেখতে পেল। সুশীলার ভাষ্যমতে, তার স্বামী চিকিৎসক। কিন্তু রমেশ একজন উকিল। তাছাড়া সে জানায় তার নাম কমলা। রমেশ কৌশলে জানতে পারে সে মামার কাছে মানুষ হয়েছে, তার বাবা-মা মৃত এবং স্বামীর নাম নলিনাক্ষ। রমেশ বুঝে যায় কমলা তার স্ত্রী নয়। বেশ কিছুদিন পর হেমের সঙ্গে রমেশের আবার যোগাযোগ হয়। কিন্তু রমেশ হেমকে কিছু জানাতে পারে না। একসময় রমেশ হেমকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়।

বিলাসী

জীবনানন্দ দাশ
  • ফ্রি বই

বেশ উজ্জ্বল একটি প্রদীপ জ্বলিতেছে, আর ঠিক সুমুখেই তক্তপোশের উপর পরিষ্কার ধপধপে বিছানায় মৃত্যুঞ্জয় শুইয়া আছে, তাহার কঙ্কালসার দেহের প্রতি চাহিলেই বুঝা যায়, বাস্তবিক যমরাজ চেষ্টার ত্রুটি কিছু করেন নাই, তবে যে শেষ পর্যন্ত সুবিধা করিয়া উঠিতে পারেন নাই, সে কেবল ওই মেয়েটির জোরে। সে শিয়রে বসিয়া পাখার বাতাস করিতেছিল, অকস্মাৎ মানুষ দেখিয়া চমকিয়া উঠিয়া দাঁড়াইল। এই সেই বুড়া সাপুড়ের মেয়ে বিলাসী। তাহার বয়স আঠারো কি আটাশ ঠাহর করিতে পারিলাম না। কিন্তু মুখের প্রতি চাহিবামাত্রই টের পাইলাম, বয়স যাই হোক, খাটিয়া খাটিয়া আর রাত জাগিয়া জাগিয়া ইহার শরীরে আর কিছু নাই। ঠিক যেন ফুলদানিতে জল দিয়া ভিজাইয়া রাখা বাসী ফুলের মত। হাত দিয়া এতটুকু স্পর্শ করিলে, এতটুকু নাড়াচাড়া করিতে গেলেই ঝরিয়া পড়িবে।

টুলটুলি

জীবনানন্দ দাশ
  • ফ্রি বই

টুলটুলির কাছে ব্যাপারটার যত সহজ, আমার কাছে ততটা নয়। টুলটুলির সঙ্গে আমার প্রেম বছর খানেকের। এই এক বছরে আমাদের ব্যাপারটা টুলটুলির বাসার সবাই জেনে গেছে। টুলটুলিই ইচ্ছে করে জানিয়েছে। পরে যাতে কোনও রকমের প্রবলেম অ্যারাইজ না করে। কিন্তু আমি কাউকে জানাতে পারিনি। আমার বাবা ভীষণ বদমেজাজী। আমি এমনিতেই একটু ভীতু প্রকৃতির। আর একটা ব্যাপার আছে, ইমিডিয়েট বড় ভাইটির এখনও বিয়ে হয়নি। বছরখানেক হলো ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে বেরিয়েছে। একটা চাকরিও জুটিয়েছে মাস ছয়েক। বাবা বোধহয় ওর বিয়ের কথা ভাবছেন। এসময় আমার এইসব ব্যাপার শুনলে নির্ঘাত গেটআউট করে দেবে।

Items Showing 1 to 20 from 20 books results

Boighor

Stay Connected