স্মৃতিকথা

Items Showing 1 to 6 from 6 books results

কাঠপেন্সিল

হুমায়ূন আহমেদ
  • ৳৮০

নিজের জীবনের কিছু কথা তিনি বলেছিলেন ‘বলপয়েন্ট’ নামে একটা বইয়ে। এ ধারাবাহিকতার আরেক বই ‌'কাঠপেন্সিল'। যথারীতি হুমায়ূন আহমেদ এখানে নিজেকেই হাজির করেছেন গল্পকথাচ্ছলে! বইটির শুরুতে ভূমিকায় হুমায়ূন বলছেন, "আত্মীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব, বিয়েবাড়ি, জন্মদিন খতনা উৎসব, সব বাতিল। গর্তে বসে লেখালেখি করি, ছবি দেখি, ছবি আঁকি, গান শুনি। এতে আমার একটা লাভ হয়েছে, মনের কিছু বন্ধ জানালা খুলে গেছে। যে চার দেয়ালে আটকা পড়ে যায়, তাকে প্রকৃতি মুক্তি দেবার চেষ্টা চালায়। তার মনের বন্ধ দরজা-জানালা খুলে এক বিশেষ ধরনের মুক্তির ব্যবস্থা করে। 'কাঠপেন্সিল'-এর লেখাগুলি সেই বিশেষ মুক্তির ফসল।" জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের যে কোনো লেখার মতো এটিও বেশ রসসিক্ত, আগ্রহোদ্দীপক। তাঁর কল্পনার গল্প নয়, তাঁর জীবনের গল্প থাকছে 'কাঠপেন্সিল'-এ। বরাবরের মতো এটিও হুমায়ূন আহমেদের সেরা সৃষ্টির একটি।

হুমায়ূন আহমেদের মাকড়সাভীতি এবং অন্যান্য

মাজহারুল ইসলাম
  • ৳৯০

হুমায়ূন আহমেদ—কিংবদন্তি শিল্পস্রষ্টা। প্রয়াণের এত বছর পরও তাঁর সৃষ্টি একইরকম জনপ্রিয়, তাঁর সম্পর্কে তীব্র কৌতূহল ভক্ত-অনুরাগীদের। বোদ্ধারা তাঁর শিল্পসৃষ্টির অনুপুঙ্খ বিশ্লেষণ করবেন। এই গ্র্রন্থের লেখক সে-পথে যান নি। তিনি খুব কাছ থেকে, বলা যায় ছায়াসঙ্গী হয়ে, দেখেছেন এই মহান শিল্পস্রষ্টাকে, বিরতিহীনভাবে প্রায় পনেরো বছর। দেখেছেন এবং বোঝার চেষ্টা করেছেন। লেখকের দেখা আর বোঝার মধ্য দিয়ে ব্যক্তি হুমায়ূন আহমেদ অনেকখানি প্রকাশ্য হয়ে উঠবেন এই গ্রন্থে। ‘গর্তজীবী’ হুমায়ূন আহমেদ সীমাবদ্ধ আপন গণ্ডির বাইরে বেরুতেন না কখনো। তাই ব্যক্তিমানুষটি সম্পর্কে বাইরের তথ্য আছে খুব সামান্যই। বিভিন্ন ধরনের কিছু লেখার সমন্বয়ে এই গ্রন্থ নিভৃতচারী এই মানুষটি সম্পর্কে আমাদের স্বচ্ছ ধারণা দেবে, মেটাবে অনেক কৌতূহল।

স্মৃতির জানালা

নূরজাহান সরকার
  • ৳৯০

অখণ্ড ভারতে জন্ম নূরজাহান সরকারের। বাবার চাকুরী সূত্রে তার শৈশব-কৈশোর কেটেছে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায়। ১৯৪৭ সালে দেশভাগের পর তারা পাকিস্তানে চলে আসেন। তার বরের চাকরি হয় রাজশাহীর সারদায় পুলিশ একাডেমিতে। কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের অনুরোধে তিনি তার পশ্চিমবঙ্গে কাটানো জীবন, বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার সময়কাল ও পরবর্তী জীবন নিয়ে স্মৃতিগদ্যের গ্রন্থ লিখেছেন। লেখক গ্রন্থের ভূমিকায় লিখেছন- ‘লেখক হুমায়ূন আহমেদ আর আমার কনিষ্ঠ পুত্র মাজহারুল ইসলাম দখিন হাওয়ায় পাশাপাশি ফ্ল্যাটে থাকে। আমি থাকি পুত্রের কাছেই। আর হুমায়ূনের রত্নগর্ভা জননী আয়েশা ফয়েজও বেশির ভাগ সময় থাকেন পুত্রের সঙ্গে। আয়েশা ফয়েজের সঙ্গে আমার বেশ সখ্য। আমরা দুই প্রবীণ নানা বিষয়ে গল্প করি। আমাদের সেই গল্পে মাঝে মাঝে যোগ দেয় হুমায়ূন। প্রচুর কৌতূহল তার। আমার কাছে অনেক কিছু জানতে চায়, বিশেষ করে আমার জীবনের নানা ঘটনা। ডায়মন্ড হারবার আর কলকাতায় আমার শৈশব-কৈশরের দিনগুলিতে যেন তার আগ্রহটা একটু বেশি। আমি তাকে সেসব বলি নিজের মতো করে। হুমায়ূন নিবিষ্ট শ্রোতা, মুগ্ধতা তার চোখে। সে বলে, খুব ইন্টারেস্টিং! আপনি এগুলি লিখে ফেলেন।

Items Showing 1 to 6 from 6 books results

Boighor

Stay Connected