সাম্ভালার খোঁজে ড. কারসন দলবল নিয়ে চলে এসেছেন তিব্বতে, তার সত্যিকার উদ্দেশ্য সম্বন্ধে কেউ জানে না। ওদিকে অপহৃত হলেন ড. আরেফিন। সুদূর ঢাকা থেকে রাশেদ তার বন্ধুকে নিয়ে ড. আরেফিনকে উদ্ধার করতে চলে এলো তিব্বতে কিন্তু তাদের পেছনে লাগল একদল লোক। লখানিয়া সিং ওরফে মজিদ ব্যাপারীও আছেন সাম্ভালার পথে, সঙ্গী যজ্ঞেশ্বর আর বিনোদ চোপড়া, তাদের দুজনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পূর্ণ আলাদা। মিচনারও পিছিয়ে নেই, প্রতিপক্ষ লখানিয়া সিং থেকে সে কেবল এক পা দূরে। অন্যদিকে পিশাচ সাধক আকবর আলী মৃধা আছে পেছনে, তার উদ্দেশ্য একটাই, প্রতিশোধ। দুই চিরশত্রু কি মুখোমুখি হবে একে অপরের? অবশেষে সাম্ভালার সন্ধান কি তারা করতে পেরেছিল? যেতে পেরেছিল কেউ ওখানে? এই রকম আরো অনেক প্রশ্নের উত্তর মিলবে ‘সাম্ভালা শেষ যাত্রা’য়। বাকি দুটি পর্বের মতোই টানটান উত্তেজনায় আপনাকে ধরে রাখবে একদম শেষ পর্যন্ত।

শরিফুল হাসানের জন্ম বাংলাদেশের ময়মনসিংহে। ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে তার শৈশব কেটেছে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন এবং বর্তমানে একটি স্বনামধন্য বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। শরিফুল হাসানের প্রথম উপন্যাস প্রকাশিত হয় ২০১২ সাম্ভালা শিরোনামে। অন্য দুটি বইয়ের সাথে, এই মনোমুগ্ধকর ফ্যান্টাসি ট্রিলজি বাংলাদেশের সীমানার ভেতরে এবং বাইরেও ব্যাপক প্রশংসা পেয়েছে। সাম্ভালা ট্রিলজি ইংরেজিতেও অনুবাদ করা হয়েছিল এবং সেটি প্রকাশিত হয়েছিল ভারত থেকে । সাম্ভালা ট্রিলজি (সাম্ভালা, সাম্ভালা দ্বিতীয় যাত্রা, সাম্ভালা শেষ যাত্রা), ঋভু, আঁধারের যাত্রী এবং কালি ও কলম ২০১৬ শিশু ও কিশোর সাহিত্যে পুরষ্কারপ্রাপ্ত অদ্ভূতুড়ে বইঘর তাঁর উল্লেখযোগ্য বই । এছাড়া বেশ কিছু গল্পসঙ্কলনে প্রকাশিত হয়েছে তার একাধিক ছোটগল্প। যদিও তাঁর সূচনা ফ্যান্টাসি এবং থ্রিলার দিয়ে, পরবর্তীতে তিনি অন্যান্য বিভিন্ন ধারায় কাজ করেছেন। এই রচনাগুলিও বাংলাদেশী পাঠক সম্প্রদায় সাদরে গ্রহণ করেছে। তাঁর অনেক কাজ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রকাশনা থেকেও প্রকাশিত হয়েছে।

No review found

Write a review

    Bad           Good
content title
Loading the player...
Boighor

Stay Connected