বাঙালি মুসলমানদের লুপ্ত গৌরব ও ইতিহাস ঐতিহ্য নিয়ে যে ক’জন খ্যাতনামা মুসলিম সাহিত্যিক স্মরণীয় বরণীয় হয়ে আছেন তাদের মধ্যে শেখ ফজলল করিম অন্যতম। তাঁর সাহিত্যকর্মের মূল উপজীব্য হিসেবে ধর্ম ও নীতি শাস্ত্র বিশেষ প্রাধান্য পেয়েছে। ‘চিন্তার চাষ’ গ্রন্থটির নীতিবাক্যগুলো মানব মন বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা করতে পারে। এই গ্রন্থের জন্য তিনি লাভ করেছিলেন নীতি ভূষণ উপাধি।

শেখ ফজলল করিম একাধারে কবি, সাহিত্যিক ও সাহিত্য সম্পাদক। ১৮৮২ সালে রংপুরে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর কাব্যভাবনা ও সাহিত্যসাধনা প্রধানত ধর্মীয় বোধ ও নীতি-চিন্তা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। তিনি ইসলাম ধর্মের আলোকে মুসলমানদের মধ্যে আদর্শ জীবনযাত্রা এবং নীতি-উপদেশ শিক্ষা দিতে চেয়েছেন। তবে তিনি সমকালের জীবন-যন্ত্রণা ও সমাজ-সমস্যার কথাও উপেক্ষা করেননি। বাঙালি মুসলমানের ভাষা নিয়ে সঙ্কটের সময় বাসনা পত্রিকা বাংলা ভাষার স্বপক্ষে দাঁড়িয়েছিল। হিন্দু-মুসলমান মিলনাকাঙ্ক্ষা ছিল এ পত্রিকার প্রধান লক্ষ্য। হিন্দু-মুসলমান সঙ্কটের সময় শেখ ফজলল করিম রচনা করেন: ‘কোথায় স্বর্গ কোথায় নরক,/ কে বলে তা বহু দূর,/মানুষের মাঝে স্বর্গ-নরক,/ মানুষেতে সুরা-সুর।’ শেখ ফজলল করিমের রচিত গ্রন্থসমূহ হলো- সরল পদ্য বিকাশ, তৃষ্ণা, পরিত্রাণ, ভগ্নবীণা, প্রেমের স্মৃতি, ভক্তি পুষ্পাঞ্জলি, পথ ও পাথেয়, গাথা ইত্যাদি। ১৯৩৬ সালে তাঁর মৃত্যু হয়।

No review found

Write a review

    Bad           Good
content title
Loading the player...
Boighor

Stay Connected