মাদ্রাজ প্রদেশীয় স্ত্রীনেবাস হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে খ্রিস্টধর্ম গ্রহণ করেন। অন্য আত্মীয়দের সাথে সর্ম্পক ছিন্ন করলেও স্ত্রী লক্ষ্মী অম্মালকে নিজের কাছে রাখতে চান। কিন্তু সমাজ বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়। তিনি আইনের স্মরণাপন্ন হন ও মাদ্রাজের সুপ্রীম কোর্টে আবেদন করেন। এর পরবর্তী ঘটনা-প্রবাহ নিয়েই এই রচনা। ১৯৮০ সালে প্রকাশিত একটি সংবাদের উপর ভিত্তি করে এটি রচিত। সেই সময়ের সামাজিক প্রেক্ষাপট, ধর্মীয় ভাবনা ও বিচারকার্য সর্ম্পকে ধারণা পাওয়া যাবে এতে।

অক্ষয়কুমার দত্ত অবিভক্ত ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমানে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর প্রাথমিক শিক্ষা কলকাতার ওরিয়েন্টাল সেমিনারিতে। বাবার মৃত্যুর পর তাঁকে স্কুল ছেড়ে কর্মজীবনে প্রবেশ করতে হয়। ফার্সি, সংস্কৃত ও বাংলাসহ আরো অনেক ভাষায় ছিল তাঁর দক্ষতা। সংবাদপত্রে লেখা প্রকাশ করে তিনি লেখক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের অনুপ্রেরণা ছিল তাঁর লেখালেখির জগতে আরো এগিয়ে যাওয়ার উৎস। তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে- ‘প্রাচীন হিন্দুদিগের সমুদ্র যাত্রা ও বাণিজ্য বিস্তার’, ‘বাহ্যবস্তুর সহিত মানব প্রকৃতির সম্বন্ধ বিচার’, ‘চারুপাঠ’, ‘ধর্মনীতি’, ‘পদার্থবিদ্যা’, ‘ভারতবর্ষীয় উপাসক সম্প্রদায়’ প্রভৃতি।

No review found

Write a review

    Bad           Good
content title
Loading the player...
Boighor

Stay Connected