কাহিনী গড়ে উঠেছে এক বাঙালি অভিযাত্রীকের ওপর ভিত্তি করে, যিনি ১৯০৯-১৯১০ সাল নাগাদ আফ্রিকা যান। শঙ্কর রায় চৌধুরী, এই গল্পের নায়ক, গ্র্যাজুয়েশন করার পর পাটকলে চাকরি নেন। কিন্তু তিনি রোমাঞ্চ খোঁজেন। গ্রামের এক অধিবাসী, যে আফ্রিকায় কাজ করে, তার সহায়তায় শঙ্কর আফ্রিকায় ক্লার্ক হিসেবে কাজ নেন এবং উগান্ডা রেলওয়েতে চাকরি পান। কর্মসূত্রে বিভিন্ন পরিক্রমায় তিনি জড়িয়ে পড়েন ভয়ঙ্কর জীবনঘাতী সব অ্যাডভেঞ্চারে।

বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম পশ্চিমবঙ্গে। তাঁর পৈত্রিক নিবাস উত্তর ২৪ পরগণা জেলার বনগাঁ’র বারাকপুর গ্রামে। ছেলেবেলাতেই তাঁর বাবাকে হারান। ১৯১৪ সালে প্রথম বিভাগে এনট্রান্স, ১৯১৬ সালে কলকাতার রিপন কলেজ (বর্তমানে সুরেন্দ্রনাথ কলেজ) থেকে প্রথম বিভাগে আই.এ, ১৯১৮ সালে ডিস্টিংশনসহ বি.এ পাশ করেন। ‘পথের পাঁচালী’, ‘অপরাজিত’, ‘আরণ্যক’, আদর্শ হিন্দু হোটেল’, ‘ইছামতী’, ‘চাঁদের পাহাড়’ প্রভৃতি তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ। ‘পথের পাঁচালী’ উপন্যাস অবলম্বনে সত্যজিৎ রায় পরিচালিত চলচ্চিত্রটি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন। সত্যজিতের ‘অপরাজিত’ এবং ‘অশনি সংকেত’ চলচ্চিত্র দুটিও বিভূতির উপন্যাস অবলম্বনে। ১৯৫১ সালে ‘ইছামতী’ উপন্যাসের জন্য তিনি পশ্চিমবঙ্গের সর্বোচ্চ সাহিত্য পুরস্কার ‘রবীন্দ্র পুরস্কার’ লাভ করেন।

No review found

Write a review

    Bad           Good
content title
Loading the player...
Boighor

Stay Connected