Mirzapure Mohatonko

মির্জাপুরে মহাতঙ্ক

Product Summery

তমাল ঢাকার একটি স্কুলের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্র। ঢাকাতেই বেড়ে উঠা। কিন্তু বাবার চাকরির বদলির সুবাধে চলে যেতে হয় মির্জাপুর নামে এক গ্রামে। প্রথমে গ্রামের অচেনা পরিবেশের সাথে কিছুতেই খাপ খাইয়ে উঠতে পারছিলো না তমাল। তবে আস্তে আস্তে নতুন বিষয়গুলোর সাথে পরিচিত হয় সে।বন্ধুত্ব ও হয়ে উঠে ছোটন, মিলি সহ ভিন্ন আচরনের কিছু ছেলে মেয়ের সাথে। তারপর থেকে আনন্দেই কাটতে থাকে তমাল ও তার বন্ধুদের দিনগুলো। কিন্তু হঠাৎ করে মির্জাপুরে নেমে আসে অশুভ এক অতিপ্রাকৃত শক্তি, যাদের লক্ষ্য পৃথিবী প্রানশূন্য করা। এ বিপদ থেকে কি রক্ষা পাবে কি পৃথিবী? আর এমন পরিস্থিতিতে কিছু মানুষকে বরাবরই অতিমানব হয়ে উঠতে হয়েছে! জfনতে হলে পড়তে হবে কিশোর অ্যাডভেঞ্চার “মির্জাপুরে মহাতঙ্ক’’।

Tab Article

তমাল ঢাকার একটি স্কুলের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্র। ঢাকাতেই বেড়ে উঠা। কিন্তু বাবার চাকরির বদলির সুবাধে চলে যেতে হয় মির্জাপুর নামে এক গ্রামে। প্রথমে গ্রামের অচেনা পরিবেশের সাথে কিছুতেই খাপ খাইয়ে উঠতে পারছিলো না তমাল। তবে আস্তে আস্তে নতুন বিষয়গুলোর সাথে পরিচিত হয় সে।বন্ধুত্ব ও হয়ে উঠে ছোটন, মিলি সহ ভিন্ন আচরনের কিছু ছেলে মেয়ের সাথে। তারপর থেকে আনন্দেই কাটতে থাকে তমাল ও তার বন্ধুদের দিনগুলো। কিন্তু হঠাৎ করে মির্জাপুরে নেমে আসে অশুভ এক অতিপ্রাকৃত শক্তি, যাদের লক্ষ্য পৃথিবী প্রানশূন্য করা। এ বিপদ থেকে কি রক্ষা পাবে কি পৃথিবী? আর এমন পরিস্থিতিতে কিছু মানুষকে বরাবরই অতিমানব হয়ে উঠতে হয়েছে! জfনতে হলে পড়তে হবে কিশোর অ্যাডভেঞ্চার “মির্জাপুরে মহাতঙ্ক’’।

Tab Article

দিবাকর দাস পেশায় ইঞ্জিনিয়ার। তবে যন্ত্রের কলকব্জার চেয়েও জীবনের কলকব্জা তাকে বেশি আকর্ষণ করে। সাহিত্যচর্চা করেন মূলত জীবনকে বোঝার জন্য। মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন, সাহিত্যবোধের মাঝ দিয়েই পরিপূর্ণ হয় মানুষের জীবন। সাহিত্যের নির্দিষ্ট কোনো একটি শাখা আঁকড়ে ধরার ইচ্ছে নেই। তাই বিচরণ করতে চান সকল শাখায়। যত মত তত পথ। দিবাকর দাসের প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘অর্ধশত পদ্য’। বের হয়েছে সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার ‘ছায়াবাজি’, কিশোর উপন্যাস ‘মির্জাপুরে মহাতঙ্ক’ আর সবশেষে ঐতিহাসিক ফিকশন ‘দ্য নেস্ট অব স্পাইডার'। ‘পঞ্চম’ তার পাঁচ নম্বর প্রকাশিত বই।

ADD A REVIEW

Your Rating

1 REVIEW for মির্জাপুরে মহাতঙ্ক !

বাবার পোস্টিংয়ের কারণে ঢাকা থেকে মির্জাপুরে আসে তমালরা। নতুন পরিবেশ আর বন্ধুদের সাথে মানিয়ে নিতে একটু সমস্যা হয়। কিন্তু একদিন বিকালে একটা ঘটনার পর তাদের সাথে বন্ধুত্ব নিশ্চিত হয়ে যায়। শহুরে তমালের গ্রামের পরিবেশের সাথে মানিয়ে নেওয়া আর দুরন্তপনা একসাথেই চলছিল। কিন্তু এক সকালে বন্ধু ছোটনদের গাই আর বাছুরকে কারা যেন নৃশংসভাবে মেরে ফেলে যায়। তারপর থেকেই ঘটনা বাঁক নেয় ভিন্ন দিকে। এদিকে, দেবতা হার্মিস তার প্রধান কিপার হেবলকে দেন একটা গোপন কাজ। সেটা সম্পন্ন করতে পারলে পৃথিবী পরিণত হবে প্রাণহীন মরু গ্রহে। ঘটনাক্রমে তমালরা জড়িয়ে যায় পৃথিবী রক্ষার গোপন কিন্তু অবিশ্বাস্য এডভেঞ্চারে। বইটার কাহিনী সংক্ষেপ আগে পড়া না থাকায় প্রারম্ভিকা পড়ে চমকে গিয়েছিলাম। গ্রিক মিথের সাথে সম্পর্ক থাকতে পারে ভাবিনি। কিন্তু ঘটনাটা হার্মিসকে দিয়ে শুরু হলেও এরপর বইয়ের পাঁচ ভাগের তিন ভাগই তমালের গ্রামীণ পরিবেশে মানিয়ে ওঠা আর কৈশোরের দুরন্ত এডভেঞ্চার যেমন: চালতা চুরি, দিঘীতে গোসল কিংবা ঘুড়ি ওড়ানো নিয়ে চলতে থাকে। গ্রামে না হলেও মফস্বলে বেড়ে ওঠায় ওই কয়েক অধ্যায়ের বর্ণনাগুলো পড়ে ঠিক মজা পাচ্ছিলাম না। এরপর হঠাৎ ঘটনা ভিন্ন দিকে বাঁক নিলে পরের ৪০ পৃষ্ঠা বেশ ভালো গতিতেই পড়া সম্ভব হয়েছে। শেষের ঘটনাগুলো এতোটাও চমকপ্রদ মনে হয়নি আমার কাছে। চরিত্রায়ণ মোটামুটি ছিল। তবে ছোট বই হওয়ায়ই হয়তো কোনো চরিত্রকে তেমন মনে ধরেনি। দিবাকর দা’র তৃতীয় বই এটা সম্ভবত। লেখনশৈলী মোটামুটি ভালোই ছিল। তবে তার শক্তিশালী দর্শন এই বইতেও কিছুটা ফুটে উঠেছে। ভালো লেগেছে তা। গ্রিক মিথের সাথে এদেশের কিশোরদের নিয়ে এরকম লেখা হয়তো হয়নি কিংবা হলেও ঠিক বলতে পারছি না। পার্সি জ্যাকসন যারা পড়েননি কিন্তু গ্রিক মিথ নিয়ে মোটামুটি ধারণা রাখেন, তারা পড়ে দেখতে পারেন।

Tarik Mahtab Siam 2022-01-19 10:10:12

এ রকম আরও বই