Je Adhare Tumi Nei

যে আঁধারে তুমি নেই

Product Summery

কিছু মানুষ থাকে যারা কাছের মানুষদের জন্য আজীবন নিজেকে নিঃশেষ করে যায়, তাকিয়ে দেখে না দিন শেষে নিজে কি পেলো। আর যখন পেছন ফিরে তাকায়, তখন পাশে এসে দাঁড়ানোর মতো কেউ থাকে না। প্রচণ্ড ভালোলাগায় হাত ধরার কেউ থাকে না। কেউ থাকে না বলার ’আর কিছু না শুধু তোমাকেই চাই’। জীবনে ভালোবাসা আসে, আবার হারিয়েও যায়, সব ভালোবাসা আকাশের মতো বিশাল উদার হয় না, বিশ্বাসের ভিত তাই অবিচল হয় না। শাহেদ নামের মানুষটি চেয়েছিলো নীরা নামের মেয়েটিকে নিয়ে অনেক দূরে কোথাও যেয়ে বাঁচতে, যেখানে নীরার অন্ধকার অতীত যেয়ে পৌঁছাবে না। কিন্তু নীরা চেয়েছিলো অয়নের মাঝে আজীবন নিজেকে খুঁজে পেতে। ভালোবাসার হয়তো এমনই নিয়ম, যে যা চায় ভুল করে চায়। এই উপন্যাসকে একটা প্রেমের উপন্যাস বলা যেতেই পারে, কিন্তু প্রেমের সাথে মিশে গেছে নিদারুণ বাস্তবতা। প্রেম এসে যেখানে শেষ হয়, বাস্তবতার শুরু ঠিক সেখানেই!

Tab Article

কিছু মানুষ থাকে যারা কাছের মানুষদের জন্য আজীবন নিজেকে নিঃশেষ করে যায়, তাকিয়ে দেখে না দিন শেষে নিজে কি পেলো। আর যখন পেছন ফিরে তাকায়, তখন পাশে এসে দাঁড়ানোর মতো কেউ থাকে না। প্রচণ্ড ভালোলাগায় হাত ধরার কেউ থাকে না। কেউ থাকে না বলার ’আর কিছু না শুধু তোমাকেই চাই’। জীবনে ভালোবাসা আসে, আবার হারিয়েও যায়, সব ভালোবাসা আকাশের মতো বিশাল উদার হয় না, বিশ্বাসের ভিত তাই অবিচল হয় না। শাহেদ নামের মানুষটি চেয়েছিলো নীরা নামের মেয়েটিকে নিয়ে অনেক দূরে কোথাও যেয়ে বাঁচতে, যেখানে নীরার অন্ধকার অতীত যেয়ে পৌঁছাবে না। কিন্তু নীরা চেয়েছিলো অয়নের মাঝে আজীবন নিজেকে খুঁজে পেতে। ভালোবাসার হয়তো এমনই নিয়ম, যে যা চায় ভুল করে চায়। এই উপন্যাসকে একটা প্রেমের উপন্যাস বলা যেতেই পারে, কিন্তু প্রেমের সাথে মিশে গেছে নিদারুণ বাস্তবতা। প্রেম এসে যেখানে শেষ হয়, বাস্তবতার শুরু ঠিক সেখানেই!

Tab Article

উপন্যাসিক কিংবা কবি যাই বলি না কেন, একজন ফারজানা মিতু আপাদমস্তক একজন কথাশিল্পী, যার কাজ সহজ কথায় কঠিন সব অর্থ পাঠকের সামনে তুলে আনা। আর ফারজানা মিতুকে জিজ্ঞেস করা হলে উনি এক কথায় বলে আমার সবচেয়ে বড় পরিচয় আমি আমার বাবার মেয়ে। সত্যিই তাই। বাবা নুরুল কিবরিয়ার সম্পূর্ণ প্রতিচ্ছবি ধারণ করে চলেছে তাঁরই সন্তান ফারজানা মিতু। শুরুটা ছিল কবিতা দিয়ে তারপর উপন্যাস। দেশের শীর্ষস্থানীয় পত্রিকায় প্রতিদিনই ছাপা হচ্ছে কোনো না কোনো লেখা। কবিতা, ছোটগল্প, প্ৰবন্ধ সব শাখাতেই সমান বিচরণ। পাঠক তার লেখার আকর্ষণীয় ক্ষমতায় ডুবেছেন প্রতিবার। পরকীয়া, বারবনিতা উপাখ্যান, তুমি আমার নীল ঝিনুকের গল্পসহ তিরিশটি বই পাঠকের হাতে হাতে। কখনো প্রেম কখনও রুঢ় বাস্তব সবই উঠে এসেছে মিতুর লেখায়।

ADD A REVIEW

Your Rating

0 REVIEW for যে আঁধারে তুমি নেই !

এ রকম আরও বই