Poth O Pathey

পথ ও পাথেয়

Product Summery

শেখ ফজলল করিমের উপদেশমূলক রচনা ‘পথ ও পাথেয়’। এ রচনায় তিনি ন্যায় পথে চলার উপদেশ দিয়েছেন। দুঃখকে যেমন চোখ দিয়ে দেখা যায় না, প্রাণ দিয়ে অনুভব করা যায়, তেমনি বিশ্বাসীর হৃদয় দিয়ে আল্লাহকে বুঝা যায়। ধর্মীয় বিধান মেনে চললে পাপ কাজ থেকে দূরে থাকা যায়। বিধাতার পথে চলা যায়। তিনি মানুষের দান ও বিধাতার দানের কথাও উল্লেখ করেছেন এ রচনায়।

আরও পড়ুন >

Tab Article

শেখ ফজলল করিমের উপদেশমূলক রচনা ‘পথ ও পাথেয়’। এ রচনায় তিনি ন্যায় পথে চলার উপদেশ দিয়েছেন। দুঃখকে যেমন চোখ দিয়ে দেখা যায় না, প্রাণ দিয়ে অনুভব করা যায়, তেমনি বিশ্বাসীর হৃদয় দিয়ে আল্লাহকে বুঝা যায়। ধর্মীয় বিধান মেনে চললে পাপ কাজ থেকে দূরে থাকা যায়। বিধাতার পথে চলা যায়। তিনি মানুষের দান ও বিধাতার দানের কথাও উল্লেখ করেছেন এ রচনায়।

Tab Article

শেখ ফজলল করিম একাধারে কবি, সাহিত্যিক ও সাহিত্য সম্পাদক। ১৮৮২ সালে রংপুরে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর কাব্যভাবনা ও সাহিত্যসাধনা প্রধানত ধর্মীয় বোধ ও নীতি-চিন্তা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। তিনি ইসলাম ধর্মের আলোকে মুসলমানদের মধ্যে আদর্শ জীবনযাত্রা এবং নীতি-উপদেশ শিক্ষা দিতে চেয়েছেন। তবে তিনি সমকালের জীবন-যন্ত্রণা ও সমাজ-সমস্যার কথাও উপেক্ষা করেননি। বাঙালি মুসলমানের ভাষা নিয়ে সঙ্কটের সময় বাসনা পত্রিকা বাংলা ভাষার স্বপক্ষে দাঁড়িয়েছিল। হিন্দু-মুসলমান মিলনাকাঙ্ক্ষা ছিল এ পত্রিকার প্রধান লক্ষ্য। হিন্দু-মুসলমান সঙ্কটের সময় শেখ ফজলল করিম রচনা করেন: ‘কোথায় স্বর্গ কোথায় নরক,/ কে বলে তা বহু দূর,/মানুষের মাঝে স্বর্গ-নরক,/ মানুষেতে সুরা-সুর।’ শেখ ফজলল করিমের রচিত গ্রন্থসমূহ হলো- সরল পদ্য বিকাশ, তৃষ্ণা, পরিত্রাণ, ভগ্নবীণা, প্রেমের স্মৃতি, ভক্তি পুষ্পাঞ্জলি, পথ ও পাথেয়, গাথা ইত্যাদি। ১৯৩৬ সালে তাঁর মৃত্যু হয়।

0 REVIEW for ' পথ ও পাথেয় '

No review found

ADD A REVIEW

Your Rating


content title
Loading the player...