Shreshtha Prabandha

শ্রেষ্ঠ প্রবন্ধ

Product Summery

হরপ্রসাদ শাস্ত্রীর ‘শ্রেষ্ঠ প্রবন্ধ’ বইটিতে সল্প পরিসরে বিচিত্র বিষয়ের উপর আলোকপাত করা হয়েছে। ভারতবর্ষীয় বিবিধ জ্ঞানচর্চার ক্ষেত্রে সংস্কৃত সাহিত্য, অন্য ভারতবর্ষীয় সাহিত্য, বৌদ্ধবিদ্যাচর্চা, ব্রাক্ষ্মণ্য বিদ্যাচর্চা, ইতিহাসচর্চা, বাংলা লিপি-ভাষা-সাহিত্যের ইতিহাস নিমার্ণ, জীবনীরচনা, স্মৃতিকথা রচনা ইত্যাদি বিষয়গুলো প্রাধান্য পেয়েছে। বইটি পাঠকালে তরুণ প্রজন্ম বিশেষভাবে পরিচিত হতে পারবে আধুনিক বাংলা সাহিত্যের ভাষাচিন্তা ও ভাষাব্যবহারের বৈপ্লবিক দিকটির সঙ্গে।

Tab Article

হরপ্রসাদ শাস্ত্রীর ‘শ্রেষ্ঠ প্রবন্ধ’ বইটিতে সল্প পরিসরে বিচিত্র বিষয়ের উপর আলোকপাত করা হয়েছে। ভারতবর্ষীয় বিবিধ জ্ঞানচর্চার ক্ষেত্রে সংস্কৃত সাহিত্য, অন্য ভারতবর্ষীয় সাহিত্য, বৌদ্ধবিদ্যাচর্চা, ব্রাক্ষ্মণ্য বিদ্যাচর্চা, ইতিহাসচর্চা, বাংলা লিপি-ভাষা-সাহিত্যের ইতিহাস নিমার্ণ, জীবনীরচনা, স্মৃতিকথা রচনা ইত্যাদি বিষয়গুলো প্রাধান্য পেয়েছে। বইটি পাঠকালে তরুণ প্রজন্ম বিশেষভাবে পরিচিত হতে পারবে আধুনিক বাংলা সাহিত্যের ভাষাচিন্তা ও ভাষাব্যবহারের বৈপ্লবিক দিকটির সঙ্গে।

Tab Article

তিনি খুলনা জেলার কুমিরা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাঙালি সংস্কৃত বিশারদ, সংরক্ষণবিদ ও বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস রচয়িতা। তিনি ১৮৭১ সালে এন্ট্রান্স, ১৮৭৩ সালে ফার্স্ট আর্টস, ১৮৭৬ সালে বি.এ এবং ১৮৭৭ সালে সংস্কৃতে অনার্স পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। অতঃপর হরপ্রসাদ এম.এ ডিগ্রি ও ‘শাস্ত্রী’ উপাধি অর্জন করেন। ১৮৭৮ সালে তিনি হেয়ার স্কুলে শিক্ষকরূপে যোগদান করেন। ১৮৮৩ সালে তিনি সংস্কৃত কলেজে অধ্যাপনা শুরু করেন। এই সময়ই বাংলা সরকার তাকে সহকারী অনুবাদক নিযুক্ত করে। ১৮৮৬ থেকে ১৮৯৪ সাল পর্যন্ত সংস্কৃত কলেজে অধ্যাপনার পাশাপাশি তিনি বেঙ্গল লাইব্রেরিতে গ্রন্থাগারিকের দায়িত্বও পালন করেন। ১৯১৬ সালে চর্যাপদের পুঁথি নিয়ে রচিত তার গবেষণাপত্র হাজার বছরের পুরাণ বাঙ্গালা ভাষায় রচিত বৌদ্ধ গান ও দোঁহা নামে প্রকাশিত হয়। জীবনে হরপ্রসাদ বহু বিদ্যাপ্রতিষ্ঠানের সম্মাননা পেয়েছেন, যার মধ্যে বিশেষ উল্লেখযোগ্য- ১৮৮৮ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের আজীবন ফেলো মনোনয়ন; ১৮৯৮ সালে সরকারের দেওয়া সম্মান ‘মহামহোপাধ্যায়’ উপাধি, ১৯১১ সালে ‘সি.আই.ই’ উপাধি।

ADD A REVIEW

Your Rating

0 REVIEW for শ্রেষ্ঠ প্রবন্ধ !

এ রকম আরও বই